মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১, ৮ আষাঢ়, ১৪২৮, ১১ জিলকদ, ১৪৪২
মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১

মুক্তিযোদ্ধাকে  মারধর করার প্রতিবাদে ডামুড্যায় মানববন্ধন

মুক্তিযোদ্ধাকে  মারধর করার প্রতিবাদে ডামুড্যায় মানববন্ধন

শরীয়তপুর: ডামুড্যায় বীর মুক্তিযোদ্ধা  খলিলুর রহমান বেপারিকে জুতা পেটা ও মারধরের প্রতিবাদে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে ডামুড্যা উপজেলা চত্বরে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

ডামুড্যা উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযোদ্ধা পরিবারবর্গ ও বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমিটি ডামুড্যা ইউনিট এর আয়োজন করে। মানববন্ধনে বক্তারা দোষীদের শাস্তির দাবি জানান। পাশাপাশি প্রশাসনের সঠিক পদক্ষেপ কামনা করেন। দোষীদের শাস্তি না হলে আন্দোলনেরও ডাক দেন তারা।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশকে মুক্তিযোদ্ধারাই স্বাধীন করেছেন। অথচ এখন এই স্বাধীন বাংলায় মুক্তিযোদ্ধারা অবহেলিত হচ্ছে। কিছু মানুষ আছে যারা মুক্তিযোদ্ধাদের যোগ্য সম্মান দিচ্ছেন না। তারা দেশ এবং সমাজের শত্রু। এসব শত্রুদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধারা আবারও এক হয়ে লড়বে।

তারা বলেন, বিভিন্ন সময় শুনা যায় দেশের বিভিন্ন স্থানে মুক্তিযোদ্ধারা বিভিন্নভাবে লাঞ্ছিত হয়েছেন।  মুক্তিযোদ্ধাদের ওপর একের পর এক হামলা হচ্ছে। অথচ পুলিশ-প্রশাসন কোনো কিছুই করছে না। তাই আমরা এর সঠিক বিচার চাই। সঠিক বিচার না হলে আমরা মুক্তিযোদ্ধারা কঠোর আন্দোলনে যাব। মুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমানের ওপর হামলার ঘটনার পাঁচ দিন অতিবাহিত হলেও সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ, এতো আতঙ্কে আছে মুক্তিযোদ্ধার পরিবার।

মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন ডামুড্যা উপজেলার আমরা মুক্তিযোদ্ধের সন্তান কমিটির সভাপতি আওলাদ হোসেন। এসময় বক্তব্য রাখেন,বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বাতেন হাওলাদার,আব্দুর রব ফকির,বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল হক সরদার,বীর মুক্তিযোদ্ধা সালাহ উদ্দিন আতস্কর,বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাঈল বেপারী, বীর মুক্তিযোদ্ধা হাসেম বেপারী,বীর মুক্তিযোদ্ধা জালাল উদ্দীন ছৈয়াল,বীর মুক্তিযোদ্ধােে, এ. এইচ. এম সাহাবুদ্দীন তালুকদার,বীর মুক্তিযোদ্ধা আজিজ লাহেড়ী, বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ হুমায়ুন কবীর,বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিল বেপারী,বীর মুক্তিযোদ্ধা মালেক গোলদার,বীর মুক্তিযোদ্ধা আলী হোসেন কোতয়াল, বীর মুক্তিযোদ্ধা  সিরাজুল ইসলাম খান, বীর মুক্তিযোদ্ধা দ্বীন মোহাম্মদ,শরীয়তপুর জেলা শাখার আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কমিটির সভাপতি আবুল মুনছুর আজাদ ভিপি শামীম প্রমুখ।

এসময় শরীয়তপুর জেলা মুক্তি যোদ্ধা সন্তান কমিটির সভাপতি ও শরীয়তপুর জেলা পরিষদের সদস্য পূর্ব মাদারীপুর কলেজের সাবেক ভি,পি আবুল মনসুর আজাদ শামিম খান(ভিপি শামিম) বলেন, আজ আমরা অত্যন্ত দুঃখ ভরা হৃদয় নিয়ে দাঁড়িয়েছি।আপনারা জানেন যে,গত কয়েক দিন আগে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান দেশ মাতৃকার মাথার মুকুট বীর মুক্তিযোদ্ধা খলিল বেপারি কে রক্তাক্ত করে লাঞ্চিত করা হয়েছে। কিন্তু আজ প্রায় পাঁচ দিন অতিবাহিত হলেও এখনো পর্যন্ত কোন আসামি গ্রেফতার হয়নি।

তিনি আরও বলেন, প্রশাসন কে বলতে চাই কেন আজও তাঁরা গ্রেফতার হলোনা? বরং উল্টো আসামি পক্ষের লোকজন আহত মুক্তি যোদ্ধা খলিল বেপারির পরিবার কে বিভিন্ন ভাবে ভয় ভীতি প্রদর্শন করে আসছে। এটা কি ভাবে মেনে নেয়া যায়। আমি প্রশাসন কে বলতে চাই মুক্তি যোদ্ধাদের কারনেই আজ আপনারা এ দেশের বড় বড় পদে কর্মকর্তা হিসেবে চাকরি করতে পারছেন, এক এক জন বড় বড় অফিসার হচ্ছেন। আজ তাদের লাঞ্চিত কারিদের আপনারা গ্রেফতার করতে পারছেন, বিষয়টি খুব হতাশাজনক! এমনি করে চলতে থাকলে এ দেশ একদিন আবার অবরুদ্ধ হয়ে যাবে। তাই অতি দ্রুত আসামি গ্রেফতার করে দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি নিশ্চিত করা হোক।

 

উল্লেখ্য, গত ২৬ মে,বুধবার এশা নামাজ আদায় করে বীরমুক্তিযোদ্ধা খলিলুর রহমান বেপারি, স্থানীয় সেলিম ফকিরের চায়ের দোকানে চা খেতে যায়।সেখানেই ওতপেতে থাকা স্থানীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসী ওয়াসিম মাদবর গংরা তার ওপর হামলা চালায়। তাকে সেখানে ভ্যান গাড়ির সাথে চেপে ধরে মারধর করে মাথা ফাটিয়ে দেয় এবং তাকে জুটা পেটা করা হয়। এ ঘটনায় ডামুড্যা থানায় পাঁচদিন ধরে মামলা করলেও কোন ব্যবস্থা নেয়নি পুলিশ, অভিযোগ মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের।


error: Content is protected !!