মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১, ৮ আষাঢ়, ১৪২৮, ১১ জিলকদ, ১৪৪২
মঙ্গলবার, ২২ জুন, ২০২১

১৮ ঘন্টায় শরীয়তপুর জেলা পুলিশ অপমৃত্যু মামলার চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেছেন।

প্রতিকি ছবি

শরীয়তপুর: শরীয়তপুর জাজিরা উপজেলায় প্রথম বারের মত মামলার ১৮ ঘন্টার মধ্যেই চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেছেন জেলা পুলিশ। এ ঘটনা ঘটে জাজিরা উপজেলার -সেনেরচর করিম উদ্দিন মাদবর কান্দির দাদন হাওলাদারের মেয়ে এবং বাদশা মোল্লার স্ত্রী সাদিয়া আক্তার(১৯)। মরুহুমের নিজ বাড়ীর বাথরুমে নিজের ব্যবহৃত ওড়না পেচিয়ে গলায় ফাস লাগিয়ে আত্মহত্যা করে। এ ঘটনায় জাজিরা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয় যাহার মামলা নং-১৪।

এই বিষয়ে মৃতার মাতা মনিকা বেগম জাজিরা থানায় হাজির হয়ে  অভিযোগ দায়ের করিলে, অভিযোগের ভিত্তিতে শরীয়তপুর পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুজ্জামানের সার্বিক দিক নির্দেশনায় অফিসার ইনচার্জের তত্বাবধানে  উক্ত অপমৃত্যু মামলা রূজু করেন। উক্ত অপমৃত্যু মামলার তদন্ত ভার এস আই(নিঃ)/অপু বড়ুয়া এর নামে অর্পণ হইলে তিনি সঙ্গীয় ফোর্স সহ জাজিরা সরকারী হাসপাতালে  উপস্থিত হয়ে লোকজনদের জিজ্ঞাসাবাদ সহ লাশের সুরত হাল তৈরী করেন।

উক্ত লাশ ময়না তদন্তের জন্য কং/৫৫৭  দ্বীন মোহাম্মদ ও নারী কং/৮৫৯ ঝুমুর আক্তার এরমাধ্যমে চালান মোতাবেক ০৬/০৬/২০২১ ইং ০০.৩০ ঘটিকার সময় ১০০ শয্যা বিশিষ্ট শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। ০৬/০৬/২০২১ ইং তারিখ ১২.৩০ ঘটিকার সময় ড. তারিকুল ইসলাম (এমবিবিএস), ড. রোকসানা বিনতে আক্তার (এমবিবিএস), ড. সুমন কুমার পোদ্দার (এমবিবিএস) ১০০ শয্যা বিশিষ্ট সদর হাসপাতাল, শরীয়তপুর গণ মতামত দেন যে, গলায় ফাঁস লাগাইয়া আত্মহত্যা করিয়াছে।

তদন্ত কারী কর্মকর্তা উক্ত মামলাটি তদন্ত করে গত ৬ জুন বিকাল সোয়া চারটায় সময় চূড়ান্ত রিপোর্ট দাখিল করেন। এই প্রক্রিয়া শেষ হতে সময় লাগে মাত্র ১৮ ঘন্টা।


error: Content is protected !!