মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১, ১২ শ্রাবণ, ১৪২৮, ১৬ জিলহজ, ১৪৪২
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১

কাদের মির্জাকে গ্রেফতার-বহিষ্কার না করলে লাগাতার আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

কাদের মির্জাকে গ্রেফতার-বহিষ্কার না করলে লাগাতার আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

নোয়াখালী: নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের ওপর হামলার প্রতিবাদে ও বসুরহাট পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জার গ্রেফতারের দাবিতে ৬০ ঘণ্টার অবরোধ শেষে নতুন করে প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ।

মঙ্গলবার (১৫ জুন) দুপুর সাড়ে ১২টায় উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান স্বাক্ষরিত এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই আল্টিমেটাম দেওয়া হয়।

এতে কোম্পানীগঞ্জ আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদল ও সরকারি মুজিব কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাসিব আহসান আলালের ওপর পৌর মেয়র আবদুল কাদের মির্জার নেতৃত্বে ও নির্দেশে হামলার প্রতিবাদে ৬০ ঘণ্টার অবরোধ সফল হয়েছে উল্লেখ করে নেতাকর্মীদের অভিনন্দন জানান।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রশাসনকে আল্টিমেটাম দিচ্ছি, বুধবারের (১৬ জুন) মধ্যে আবদুল কাদের মির্জাসহ হামলাকারীদের গ্রেফতার করতে হবে। অন্যথায় বৃহস্পতিবার (১৭ জুন) থেকে লাগাতার অবরোধ কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

এতে বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জাকে সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডের দায়ে এবং দলের কেন্দ্রীয় সিনিয়র নেতা থেকে শুরু করে মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, জেলা নেতা ও স্থানীয় নেতাদের চরিত্র হরণ করে ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার অপরাধে অনতিবিলম্বে দল থেকে বহিষ্কার দাবি করা হয়। অন্যথায় কঠোর থেকে কঠোরতর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি দেয় তারা।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, আমরা কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগ সরকারের প্রতি দাবি জানিয়ে বলবো, বসুরহাট পৌরসভা একটি স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান হওয়া সত্ত্বেও কাদের মির্জা আইন অমান্য করে প্রতিষ্ঠানটিকে নিজস্ব সম্পত্তি বানিয়ে পৌর ভবনকে সন্ত্রাসীর আস্তানা ও মিনি ক্যান্টনমেন্ট হিসেবে গড়ে তুলেছেন। এ অপরাধে তাকে মেয়র পদ থেকে অপসারণ করে পৌর ভবনে অবস্থানকারী সব অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা হোক।

উল্লেখ্য, শনিবার (১২ জুন) সকাল ৯টায় বসুরহাট বাজারের প্রেসক্লাবের সামনে মিজানুর রহমান বাদলের ওপর আবদুল কাদের মির্জার অনুসারীরা হামলা চালায় বলে অভিযোগ করা হয়। এতে বাদলের গাড়ি ভাঙচুর ও সঙ্গে থাকা সাবেক ছাত্রনেতা আলালও আহত হন। গুরুতর আহত বাদল ঢাকা ট্রমা সেন্টারে ভর্তি রয়েছেন। উপজেলা আওয়ামী লীগের অভিযোগ, কাদের মির্জাকে আসামি করায় হামলার ঘটনার চার দিন পার হলেও মামলা রুজু করেনি পুলিশ।


error: Content is protected !!