মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১, ১২ শ্রাবণ, ১৪২৮, ১৬ জিলহজ, ১৪৪২
মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই, ২০২১

গোপালগঞ্জে হত্যামালায় ব্যবসায়ীকে ফাঁসানোর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

গোপালগঞ্জে হত্যামালায় ব্যবসায়ীকে ফাঁসানোর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

গোপালগঞ্জ : গোপালগঞ্জে একটি হত্যামালায় ঢাকায় বসবাসকারী ব্যবসায়ী মো: হুমুয়ুন কবির খান বিল্লালকে ফাঁসানোর প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ সোমবার (২১ জুন) সকাল ১১টায় গোপালগঞ্জ জেলা প্রেসক্লাবে ওই ব্যবসায়ীর পক্ষে তার স্ত্রী ফারহানা কবির এ সংবাদ সম্মেলন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে সংবাদ সম্মেলনে ফারহানা কবির বলেন, আমাদের গ্রামের বাড়ি গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ভাকুড়ী গ্রামে। ব্যবসায়ীক কারনে আমারা পরিবারসহ ১৬ বছর ধরে ঢাকায় বসবাস করি। গ্রামের বাড়ি আমরা তেমন আসি না, আমার শাশুরী মাঝে মাঝে গ্রামের বাড়িতে এসে থাকেন। আমার স্বামীর বংসের চাচা আলী খান ও তার ছেলেরা রিপন খান, সুমন খান, মারুফ খান ও রাজিব খান এলাকার লাঠিয়াল, সন্ত্রাসী ও বেয়াদর প্রকৃতির লোক। আমরা ঢাকায় থাকার কারনে প্রতিবেশী লাঠিয়াল বাহিনি আমার স্বামীর পৈতৃক ও ক্রয়কৃত সম্পত্তি অবৈধভাবে ভোগদখল করার উদ্দেশ্যে পায়তারা করতে থাকে। বিগত বছর আমাদের জায়গায় একটি এগ্রো ফার্ম করতে গেলে তারা বাধা দেয়ার খবর পেয়ে আমার স্বামী বাড়িতে আসে। বাধা দেওয়ার বিষয়ে শুনতে গেলে স্বামীসহ পরিবারের সবাইকে ভয়ভিতি ও প্রান নাশের হুমকি দেয়। এক পর্যায় আমরা পুনরায় ঢাকায় ফিরে যাই।

তিনি আরো বলেন, গত ২০২০ সালের ২৯ অক্টোবর বালু কাটার জের ধরে ভাকুড়া গ্রামে রুহুল শেখ কে মারপিট করে একই গ্রামের আলি খান গংরা। এ ঘটনার জের ধরে ৩০ অক্টোবর দুই গ্রুপের মধ্যে সংর্ঘষ হয় এবং সংর্ঘষে সুমন খান নিহত হয়। ঘটনার পর পরিকল্পিতভাবে আমাদের বাড়িঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে। আমার স্বামী হুমায়ুন কবির খান বিল্লাল ঘটনার সাথে এবং ঘটনাস্থলে না থাকার সত্বেও সুমন হত্যাকান্ডের প্রধান অসামী করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে বংসের চাচাতো ভাই রুহুল আমিন খান রিপন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মুকসুদপুর থানার ওসি (তদন্ত) খন্দকার আমিনুর রহমান দীর্ঘ তদন্ত শেষে আমার স্বামী সুমন হত্যাকান্ডে সম্পৃক্তা না থাকায় অভিযোগপত্র থেকে তাকে অব্যাহতি দেন। কিন্তু সাংবাদিকদের কাছে মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করে আমার স্বামীকে হয়রানী করার চেষ্টা করছে। আমি এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং হয়রানী থেকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করছি। এ সংবাদ সম্মেলনে জেলার কর্মরত গণমাধ্যম কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।


error: Content is protected !!