মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯, ২২ শাওয়াল, ১৪৪৩
মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২

কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আঃলীগ নেতা মিহির চক্রবর্তী

ছবি: মিহির চক্রবর্তী

শরীয়তপুর: সমগ্র বাংলাদেশে চলমান রয়েছে ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন। ইতিমধ্যে কয়েকটি ধাপে সমগ্র বাংলাদেশের বিভিন্ন ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় শরীয়তপুর জেলায়ও বইছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের আমেজ। ইতিমধ্যে জেলার বেশকিছু ইউনিয়নের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কিছুদিন পরই অনুষ্ঠিত হবে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নের নির্বাচন। নির্বাচন কমিশন কর্তৃক ঘোষিত তফসিল অনুসারে আগামী ৫ই জানুয়ারী আসন্ন ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নড়িয়া উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক, সাবেক ছাত্রনেতা মিহির চক্রবর্তী।

মিহির চক্রবর্তী সর্বদা নিজ এলাকায় অবস্থান করে কেদারপুর ইউনিয়ন বাসীর পাশে থেকে দীর্ঘদিন যাবত কেদারপুর ইউনিয়নে কাজ করে চলেছেন। মিহির চক্রবর্তী সুখে দুঃখে সর্বদা কেদারপুর ইউনিয়ন এলাকার সাধারণ মানুষের পাশে থেকেছেন এবং এখনো আছেন। দিন নেই রাত নেই জাতি ধর্ম বর্ণ নিঃবেশে যখনি কেদারপুর ইউনিয়নের যেকোন মানুষের কোন সমস্যার কথা শুনেন তখনি সেখানে ছুটে যান চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মিহির চক্রবর্তী।

নদী ভাঙ্গন, করোনা কালিন সময় এবং বন্যার সময়ে মিহির চক্রবর্তী কেদারপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন ওয়ার্ডে সাধারণ জনগনের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের খোঁজ নিয়েছেন এবং খাদ্য সহায়তা পৌঁছে দিয়েছে। তার নির্বাচনী এলাকা কেদারপুর ইউনিয়নের কারো কোন মৃত্যু সংবাদ, কোন বিপদের সংবাদ শুনলেই সেখানেই ছুটে আসেন মিহির চক্রবর্তী। যে কোন সামাজিক অনুষ্ঠান সহ যে কোন কাজে সব সময় পাশে থেকে সহযোগিতা করেন মিহির চক্রবর্তী।

কেদারপুর ইউনিয়নে তিনি দীর্ঘদিন যাবত কাজ করে চলেছেন। তারই সুবাদে বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা, সরকারি সহায়তা সহ সরকার কর্তৃক ঘোষিত বিভিন্ন সহায়তা যাতে কেদারপুর ইউনিয়ন বাসী যথাযথ ভাবে পেতে পারে তার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মিহির চক্রবর্তী।

চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী মিহির চক্রবর্তী বলেন, আমি এই ঐতিহাসিক কেদারপুর ইউনিয়নের সন্তান। আমি স্কুল জীবন থেকে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শকে বুকে ধারন করে রাজনীতির সাথে সম্পৃক্ত। আমি দীর্ঘদিন যাবত কেদারপুর ইউনিয়ন বাসীর পাশে থেকে তাদের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। আমি সর্বদা নিজ এলাকায় থেকে আমার ইউনিয়নের সর্বস্তরের জনগণের সুখে দুঃখে সব সময় পাশে ছিলাম আগামীতেও থাকবো।

কেদারপুর ইউনিয়ন শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার একটি ঐতিহ্যবাহী ইউনিয়ন। নদী ভাঙ্গন সহ বিভিন্ন কারনে দীর্ঘদিন যাবত এই কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় না। যার ফলে কেদারপুর ইউনিয়ন বাসী যথাযথ নাগরিক সুবিধা থেকে বিভিন্ন সময় বঞ্চিত
হয়। কেদারপুর ইউনিয়নের জনগনের দাবীর পরিপেক্ষিতে এবং আমাদের নেতা পানী সম্পদ মন্ত্রণালয়ের মাননীয় উপমন্ত্রী এ কে এম এনামুল হক শামীম এমপি মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টার ফলে শীঘ্রই কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আসন্ন কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে আমি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী। আমি দীর্ঘদিন যাবত কেদারপুর ইউনিয়ন বাসীর জন্য কাজ করে যাচ্ছি। জাতি ধর্ম বর্ন নিঃবেশে কেদারপুর ইউনিয়ন বাসী আমাকে ভালবাসে আর তাদের ভালোবাসা, আশির্বাদ, দোয়া ও সমর্থন মাথায় নিজেই আমি চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী হয়েছি। দীর্ঘদিন আমি কেদারপুর ইউনিয়ন বাসীর পাশে থেকে তাদের সেবা করেছি এবং আগামীতেও যাতে করতে পারি তাই কেদারপুর ইউনিয়ন বাসী আমাকে আসন্ন কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তাদের মূল্যমান ভোট প্রদানের মাধ্যমে বিপুল ভোটে জয়যুক্ত করবে বলে আমি বিশ্বাস করি।

আমি কেদারপুর ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে চেয়ারম্যান হিসেবে জয়যুক্ত হতে পারলে কেদারপুর ইউনিয়নকে মাদক, সন্ত্রাস মুক্ত একটি মডেল ইউনিয়ন হিসেবে গড়ে তুলবো। সাধারণ জনগণ যাতে যথাযথ ভাবে নাগরিক সুবিধা ভোগ করতে পারে সেই ব্যবস্থা করবো। কেদারপুর ইউনিয়নের রাস্তা- ঘাট, ব্রিজ-কালভার্ট, মন্দির, মসজিদ সহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নে কাজ করবো। বিধবা ভাতা, বয়স্ক ভাতা, মুক্তিযোদ্ধা ভাতা সহ সরকার কর্তৃক ঘোষিত বিভিন্ন সহায়তা যাতে কেদারপুর ইউনিয়ন বাসী যথাযথ ভাবে পেতে পারে সেই ব্যবস্থা করবো।

আওয়ামিলীগ নেতা মিহির চক্রবর্তী ছাত্র জীবন থেকে রাজনীতির সাথে জড়িত। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নিজ হাতে গড়া সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ দিয়েই তার রাজনৈতিক হাতে খড়ি। ছাত্র রাজনীতি কালে তিনি প্রথমে নড়িয়া উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপরে নড়িয়া উপজেলা ছাত্রলীগের দপ্তর সম্পাদক, পরে বিএনপির আমলে বাংলাদেশে আওয়ামীলীগের দুঃসময়ে সম্মেলনের মাধ্যমে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ শরীয়তপুর জেলা শাখার সহ সভাপতি নির্বাচিত হয়। তিনি জেলা ছাত্রলীগের সহ সভাপতি নির্বাচিত হওয়ার পরে দলের একনিষ্ঠ কর্মী হয়ে রাজপথে বিভিন্ন মিছিল মিটিং এ অগ্রনী ভূমিকা পালন করেন। ছাত্র রাজনীতির বয়স অতিবাহিত হওয়ার পরে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগ নড়িয়া উপজেলা শাখার কার্যনির্বাহী সদস্য নির্বাচিত হন। এরপর তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নড়িয়া উপজেলা শাখার প্রচার সম্পাদক নির্বাচিত হন। বর্তমানে তিনি বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ নড়িয়া উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক হিসেবে দায়িত্বরত আছেন, তিনি নড়িয়া উপজেলা শেখ রাসেল স্মৃতি সাংসদের সভাপতি, মিহির চক্রবর্তী বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ শরীয়তপুর জেলা শাখার যুগ্ম সাধারন সম্পাদক পদে রয়েছেন। এছাড়া ও তিনি শরীয়তপুর জেলার বিভিন্ন রাজনৈতিক ও ধর্মীয় সংগঠনের পদে রয়েছেন।

মিহির চক্রবর্তী শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়নের ব্রাক্ষ্মন পরিবারের সন্তান। তাহার পিতার নাম মৃত নারায়ন চক্রবর্তী


error: Content is protected !!