[bangla_day], [english_date], [bangla_date], [hijri_date]
[bangla_day], [english_date]

শরীয়তপুরে  ঈগলের নির্বাচনী ক্যাম্পে দুর্বৃতের আগুন

শরীয়তপুরে  ঈগলের নির্বাচনী ক্যাম্পে দুর্বৃতের আগুন

শরীয়তপুর : শরীয়তপুর ২ (নড়িয়া-সখিপুর) আসনের স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. খালেদ শওকত আলীর একটি নির্বাচনী ক্যাম্পে আগুন ধরিয়ে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। শুক্রবার ভোর রাতের দিকে দুর্বৃত্তরা অস্থায়ী ওই ক্যাম্পটিতে আগুন ধরিয়ে দেয়। ঘড়িসার ইউনিয়ের ৫ নং ওয়ার্ড নন্দনসার লুৎফর চেয়ারম্যান বাড়ীর মহিসুন্নাহ মাদ্রাসার পাশে স্বতন্ত্র প্রার্থীর ঈগল প্রতীকের একটি ক্যাম্প ধরিয়ে দেয় দুর্বৃতরা।  এতে ক্যাম্পটির অনেক অংশ পুড়ে যায়।

প্রার্থী ও স্থানীয় সূত্র জানায়,শরীয়তপুর ২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী পানি সম্পদ উপমন্ত্রী এনামুল হক শামীম। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ঈগল পাখি প্রতীকে নির্বাচন করছেন যুবলীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য খালেদ শওকত আলী।  এ ছারা আরো ৮ জন প্রার্থী আসনটিতে নির্বাচন করছেন। গত ১৯ ডিসেম্বর হতে স্বতন্ত্র ও আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ১৫ নির্বাচনী ক্যাম্প ভাংচুরের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষ,ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া ও ক্যাম্প ভাংচুরের ঘটনা নড়িয়া থানা ৭টি মামলা করা হয়েছে।
নড়িয়া – ঘড়িসার ইউনিয়ের ৫ নং ওয়ার্ড নন্দনসার লুৎফর চেয়ারম্যান বাড়ীর মহিসুন্নাহ মাদ্রাসার সড়কের পাশে ঈগল প্রতিকের একটি অস্থায়ী নির্বাচনী ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। কাপর দিয়ে ক্যাম্পটি নির্মান করা হয়েছে। শুক্রবার ভোর রাতের দিকে দুর্বৃত্তরা ওই ক্যাম্পে আগুন ধরিয়ে দেয়। দুর্বৃত্তের দেয়া আগুনে ক্যাম্পটি পুড়ে ছাই হয়ে যায় ও ১০ টি চেয়ার পুড়িয়ে দেয়। স্থানীয়রা আগুন নিভিয়ে ফেলার কারনে চার থেকে পাঁচটি চেয়ার ব্যানার ও কাপড়ের কিছু অংশ কোন ক্ষয়-ক্ষতির হয়েছে।

স্থানীয় অনেকে জানান, স্বতন্ত্রের কাঁধেবর করে নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপি জামাত এ কার্যক্রম করতে পারে।

ঈগল প্রার্থীর প্রতীকের প্রার্থী ডা. খালেদ শওকত আলী বলেন, নৌকা প্রতীকের সমর্থকরা আমাদের বিভিন্ন অফিসে ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগ করছে। তাদের পায়ের নিচে মাটি না থাকার কারনে তারা এ ধরনের নোংরা কাজ গুলো করছে। তারা উসকানি মূলক কাজ করে, আমাদের ফাঁদে ফালানোর চেষ্টা চালাচ্ছে। আমরা ধর্য ধরছি, ভোটের মাধ্যমে এর জবাব দিবে জনগণ।

নৌকা প্রতীকের প্রার্থী একেএম এনামুল হক শামীমের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির প্রধান সমন্বয়ক ও নড়িয়া পৌরসভার মেয়র অ্যাডভোকেট আবুল কালাম আজাদ বলেন, ঈগল প্রতীকের প্রার্থীরা বিএনপি জামাততের লোকজন নিয়ে তারা এর আগেও আমাদের নৌকার ক্যাম্পে আগুন দিয়েছে। তারা এ বার নিজেদের দায় এড়াতে তাদের অফিসে জ্বালিয়ে দেয়।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুস্তাফিজুর রহমান জানান, এমন কোন ঘটনার তথ্য পাইনি। যদি এমন কোন ঘটনার তথ্য পাই আর কোন পক্ষ অভিযোগ করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।


error: Content is protected !!