মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২, ১০ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯, ২২ শাওয়াল, ১৪৪৩
মঙ্গলবার, ২৪ মে, ২০২২

বঙ্গবন্ধুর সমাধি কমপ্লেক্সে দুই সপ্তাহের জন্য সাময়িক বন্ধ ঘোষনা

বঙ্গবন্ধুর সমাধি কমপ্লেক্সে দুই সপ্তাহের জন্য সাময়িক বন্ধ ঘোষনা

গোপালগঞ্জ : হঠাৎ করে করোনার সংক্রমন বেড়ে যাওয়ার কারনে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধ কমপ্লেক্স দুই সপ্তাহের জন্য সাময়িক ভাবে বন্ধ ঘোষনা করা হয়েছে।

গতকাল শুক্রবার (২৮ জানুয়ারী) দুপুরে টুঙ্গিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম হেদায়েতুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেন।

গতকাল শুক্রবার (২৮ জানুয়ারী) থেকে আগামী ১০ ফেব্রুয়ারী পযর্ন্ত এ আদেশ বলবৎ থাকবে।

টুঙ্গিপাড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ কে এম হেদায়েতুল ইসলাম জানিয়েছেন, গোপালগঞ্জসহ সারা দেশে করোনা সংক্রমন বেড়ে গেছে। এ কারনে প্রশাসন দুই সপ্তাহ জাতির পিতার সমাধি সৌধ কমপ্লেক্স সামায়িকভাবে বন্ধ ঘোষনা করে। এসময় জেলা বা বাইরের জেলা থেকে আসা দর্শনার্থীরা ভিতরে প্রবেশ করতে পারবেন না। তবে নিরাপত্তাসহ সামাধি সৌধের অভ্যান্তরিন কাজ চলমান থাকবে। সমাধি সৌধের বাইরে সমায়িকভাবে বন্ধ সংক্রান্ত একটি ব্যানার টাঙ্গিয়ে দেয়া হয়েছে।

হঠাৎ করে সামাধি সৌধ কমপ্লেক্স বন্ধ করায় বিপাকে পড়েছেন দর্শনার্থীরা। বিভিন্ন জেলা থেকে আসা দর্শনার্থীরা ভিতরে প্রবেশ করতে না পেরে ফিরে গেছেন।

নাম না প্রকাশ করার শর্তে অনেক দর্শনার্থী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধ কমপ্লেক্স বন্ধ করার কয়েক দিন আগে ঘোষনা করা উচিত ছিল। এতে এখানে আসা দর্শনার্থীরা ভোগান্তিতে পারতেন না।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধ কমপ্লেক্সের কিউরেট মো: নুরুল ইসলাম বলেন, প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত সমাধি সৌধ কমপ্লেক্সে দর্শনার্থীদের সমাগম থাকে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির অবনতির কারনে ২৮ জানুয়ারী থেকে আগামী ১০ ফেব্রুয়ারী পর্যন্ত দুই সপ্তাহের জন্য সমাধি সৌধ কমপ্লেক্সে দর্শনার্থীদের প্রবেশাধিকার বন্ধ করা হয়েছে।

টুঙ্গিপাড়া পৌর সভার মেয়র শেখ তোজাম্মেল হক টুটুল বলেন, করোনার সাংক্রমণ কমাতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু মেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধ কমপ্লেক্স সাময়িক ভাবে বন্ধ ঘোষনা করা হয়। পরিস্থিতির উন্নতি হলে দুই সপ্তাহ পর আদেশ তুলে নেয়া হবে।

এদিকে, গোপালগঞ্জ সিভিল সার্জন অফিস সূত্রে জানাগেছে, গেলো ২৪ ঘন্টায় গোপালগঞ্জে ৩৩৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় ১১৫ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ৩৪.৩৩ ভাগ। এরমধ্যে সদর ‍উপজেলায় ৭৫ জন, মুকসুদপুর উপজেলায় ১৯, কোটালীপাড়া উপজেলায় ৮, কাশিয়ানী উপজেলায় ৮ ও টুঙ্গিপাড়া উপজেলায় ৫ জন রয়েছেন।

এ নিয়ে জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ১০ হাজার ৬১৭ জন। নতুন করে সুস্থ হয়েছে ৯ জন, মোট সুস্থ ৯৯৭৩ জন। এ পর্যন্ত জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে মারাগেছে ১০৩ জন।


error: Content is protected !!