সুপ্রিম কোর্টের নোটিশ ভারতের কেন্দ্রীয় ও জম্মু-কাশ্মির সরকারকে

79

আন্তর্জাতিক ডেস্ক |নিউজ ১৬ বিডি ডটনেট

বুধবার (২৮ আগস্ট)  বিচারপতি অরুণ মিশ্র, বিচারপতি এম আর শাহ এবং বিচারপতি অজয় রাস্তোগীরের বেঞ্চ এই মামলাটির শুনানি হয়। এদিকে নোটিশের বিষয়ে আগামী অক্টোবরে শুনানি অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে কাশ্মিরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারকে সংবিধানের ১৯ ও ২১ নং অনুচ্ছেদের পরিপন্থী উল্লেখ মামলাটি করেন কংগ্রেসকর্মী তেহসিন পুনাওয়ালা।

কংগ্রেসকর্মী তেহসিন পুনাওয়ালার বরাত দিয়ে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস জানায়, তেহসিন পুনাওয়ালার ৩৭০ ধারা সম্পর্কে কোনো মতামত রাখছেন না, কিন্তু কারফিউ বা বিধিনিষেধ প্রত্যাহার চাইছেন। একইসঙ্গে জম্মু কাশ্মিরজুড়ে যেভাবে ফোনলাইন, ইন্টারনেট ও নিউজ চ্যানেল সম্প্রচার বন্ধ রাখা হয়েছে, সে নির্দেশ তুলে নেয়া হোক চাইছেন তিনি।

এ ছাড়াও প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতিসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতাদের সুপ্রিম কোর্ট মুক্তি দেয়ার আদেশ দিক, এমনটাই বলা হয়েছে পুনাওয়ালার আবেদনে।

৬ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিল করে নরেন্দ্র মোদির সরকার। এই প্রস্তাব অনুযায়ী, জম্মু-কাশ্মিরকে বিশেষ মর্যাদা প্রদানকারী ৩৭০ ধারা বাতিল হওয়ার পাশাপাশি পূর্ণ রাজ্যের মর্যাদাও তাদের আর থাকছে না। জম্মু-কাশ্মির এবং লাদাখকে দু’টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে ভাগ করা হচ্ছে। জম্মু-কাশ্মির হতে চলেছে বিধানসভা পরিচালিত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। আর লাদাখ হবে প্রশাসক দ্বারা পরিচালিত কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল। ভারতের এই সিদ্ধান্ত মেনে নেয়নি অধিকাংশ কাশ্মীরি।