চিকিৎসক সংকটে কাঙ্ক্ষিত সেবা পাচ্ছে না স্থানীয়রা

ব্রাক্ষণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়া নাসিরনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিত্সক সংকটে কাঙ্ক্ষিত সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন উপজেলাবাসী। ২০০৭ সালে উপজেলার একমাত্র হাসপাতালটি ৩১ থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীত করা হলেও বাস্তবে সেবাদানের ক্ষেত্রে কোনো উন্নতি হয়নি। দূরদূরান্ত থেকে চিকিত্সাসেবা নিতে আসা অনেক রোগী চিকিত্সক না পেয়ে ফিরে যেতে বাধ্য হচ্ছেন।

উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. অভিজিত্ রায় জানান, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জুনিয়র কনসালটেন্ট (অ্যানেসথেসিয়া), জুনিয়র কনসালটেন্ট (সার্জিক্যাল), জুনিয়র কনসালটেন্ট (গাইনি অ্যান্ড অবস), জুনিয়র কনসালটেন্ট (ডেন্টাল)সহ অনেক চিকিত্সকের পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। বিশেষ করে গাইনি ডাক্তার না থাকায় মহিলা রোগীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।

এছাড়া এখানে অত্যাধুনিক অপারেশন থিয়েটার ও প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি থাকলেও প্রয়োজনীয় জনবল, অ্যানেসথেসিয়ার ও সার্জারি ডাক্তার না থাকায় সিজারসহ অন্যান্য অপারেশন বন্ধ রয়েছে। এতে বছরের পর বছর অব্যবহূত ও তালাবন্ধ থাকায় প্রায় কোটি টাকার যন্ত্রপাতি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চার জন সেবিকার পদ থাকলেও রয়েছে মাত্র একজন। মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট (ফার্মাসিস্ট), মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট (ল্যাব)সহ এম এল এস এস, মালি ও নিরাপত্তা প্রহরীর পদ শূন্য রয়েছে। বর্তমানে দুজন চিকিত্সক দিয়ে চলছে আউটডোরের চিকিত্সা কার্যক্রম। এতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। তবে চিকিত্সক সংকটসহ বিভিন্ন সমস্যার বিষয়ে প্রতি মাসে সিভিল সার্জনসহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও প্রতিকার হচ্ছে না।