ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ইবি: ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) “মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও প্রগতিশীলতায় বিশ্বাসী” সাংবাদিক সংগঠন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটির প্রথম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে। ১৮ নভেম্বর (সোমবার) বিকাল সাড়ে ৩ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমান মিলনায়তনে কেক কাটা ও আলোচনাসভার মধ্য দিয়ে প্রথম এ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন অনুষ্ঠানে “মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকদের ভূমিকা ও বর্তমান প্রেক্ষাপট” শীর্ষক আলোচনাসভায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি আবু সালেহ শামীমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ হারুন উর রশিদ আসকারী, বিশেষ অতিথি উপ-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ শাহিনুর রহমান, কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. মোঃ সেলিম তোহা, সম্মানিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার(ভারপ্রাপ্ত) এস এম আব্দুল লতিফ ও আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য প্রদান করেন দৈনিক ইত্তেফাক এর ভ্রাম্যমান প্রতিনিধি বিমল সাহা।

এর আগে বিকাল ৩ টায় রিপোর্টার্স ইউনিটির নেতৃবৃন্দ ও সদস্যরা উপস্থিত অতিথিবৃন্দের সাথে নিয়ে একটি আনন্দ শোভাযাত্রা করেন। পরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে মিলনায়তনে সামনে এসে শেষ করেন।

“মুক্তিযুদ্ধে সাংবাদিকদের ভূমিকা ও বর্তমান প্রেক্ষাপট” শীর্ষক আলোচনাসভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. রাশীদ আসকারী বলেন, “সাংবাদিকতা হবে সত্য ও ন্যায়ের উপাসক এবং মিথ্যা ও অসত্যের যম। এই সাংবাদিকতা হবে মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অনুকূলে। দেশ যাতে মুক্তিযুদ্ধের মহান চেতনা থেকে বিচ্ছিন্ন না হয়ে যায় তার জন্য অতন্দ্র প্রহরী হিসেবে কাজ করবে সাংবাদিকেরা। তিনি আরও বলেন, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে সাংবাদিকতার ইতিহাস অত্যন্ত গৌরবের। আমি অত্যন্ত আনন্দের সাথে ঘোষণা করতে চাই সেই ঐতিহ্যপূর্ণ সাংবাদিকতার ধারার সাথে যুক্ত হয়েছে আরেকটি নতুন ধারা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নয়ন সাংবাদিকতায় এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে রিপোর্টার্স ইউনিটি ব্যাপক ভূমিকা রাখতে সক্ষম হয়েছে। আমরা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে অনেক অনেক প্রীতি ও শুভেচ্ছা জানাই।”

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় শাপলা ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা ও প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. নাসিমা বানু সহ প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন রিপোর্টার্স ইউনিটির দপ্তর সম্পাদক মুরতুজা হাসান এবং সদস্য তিতলি ও এশা।

উল্লেখ্য, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় রিপোর্টার্স ইউনিটি গত ২০১৮ সালের ১৮ নভেম্বর থেকে যাত্রা শুরু করে।