সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১, ১১ মাঘ, ১৪২৭, ১১ জমাদিউস সানি, ১৪৪২
সোমবার, ২৫ জানুয়ারি, ২০২১

ভেদরগঞ্জ পৌর নির্বাচনে এগিয়ে হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার

ভেদরগঞ্জ পৌর নির্বাচনে এগিয়ে হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার

শরীয়তপুর: আগামী ৩০শে জানুয়ারী অনুষ্ঠিত হবে শরীয়তপুর জেলার ভেদরগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচন। এ নির্বাচন নিয়ে প্রবল আগ্রহ রয়েছে ভোটারদের মধ্যে। মেয়র পদে ছয়জন প্রার্থীর মধ্যে ভোটারদের আস্থা অর্জন করতে পেরেছেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বর্তমান মেয়র হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার । দলীয় প্রার্থী, এলাকায় জনসেবা ও মানবীক ব্যক্তি হওয়ায় হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদারের রয়েছে ব্যাপক গ্রহণযোগ্যতা। প্রার্থীদের প্রচার-প্রচারণায় সরব পৌরাঞ্চল। মধ্যরাত অবধি চলেছে প্রার্থীদের গণসংযোগ, মিছিল আর উঠান-বৈঠক। কে হচ্ছেন আগামীর পৌরপিতা এ বিষয়ে ভোটাররা স্থির সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন। এখন শুধু সময়ের অপেক্ষা। তবে নৌকা প্রতীকে নির্বাচন করায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদারের প্রতিই এবারের নির্বাচনে আস্থা ভোটারদের।
জানা যায়, এবার ইভিএম পদ্ধতিতে ছাড়াই নির্বাচন হবে ভেদরগঞ্চ পৌরসভায়। চলতি নির্বাচনে ভেদরগঞ্চ পৌরসভায় মেয়র পদে ছয়জন এবং কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আরও ৪০ প্রার্থী। ছয়জন মেয়র প্রার্থীর মধ্যে এবারের নির্বাচনে ভোটারদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ভেদরগঞ্চ উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্নসাধারণ সম্পাদক বর্তমান মেয়র হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদার । তার অন্যতম কারণ, আওয়ামী লীগ থেকে তিনিই একমাত্র প্রার্থী। বিএনপির মনোনীতি প্রার্থী বিএম মোস্তাফিজুর রহমান বেপারী, আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল মান্নান বেপারীর স্ত্রী উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের আহবায়ক চিনু বেগম, উপজেলা আওয়ামীলীগের কোষাধক্ষ আবুল বাশার চৌকদার, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রিড়া বিষয়ক সম্পাদক নিয়ামত সিকদার, বিএনপি নেতা দেলোয়ার হোসেন।
ভোটাররা জানান, চলতি নির্বাচন সামনে রেখে বিগত দশ বছর বর্তমান মেয়র আব্দুল মান্নান হাওলাদার ভেদরগঞ্জ পৌরাঞ্চলের অলিগলি চষে বেড়িয়েছেন। পৌরবাসীর সুখে-দুঃখে সব সময় পাশে ছিলেন তিনি। পৌরসভার ২০টি মসজিদের উন্নয়ন, বহু লোকের কর্মসংস্থান ব্যবস্থা, করোনার সময় কর্মহীন মানুষের মাঝে বাড়ি বাড়ি গিয়ে খাবার সামগ্রী পৌছে দিয়েছেন। পৌরসভার অনেক শিক্ষার্থীর শিক্ষাব্যয় ও নাগরিকের চিকিৎসা-ব্যয় নিয়মিত বহন করছেন তিনি। দরিদ্রদের রিকশা ও সেলাই মেশিন প্রদানসহ বিভিন্ন সহযোগিতার কারণে তিনি রয়েছেন জনপ্রিয়তার শীর্ষে। হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদারকে সাধারণ মানুষ মেয়র হিসেবে পেতে কাজ করে যাচ্ছেন। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত অবধি পৌরসভার পাড়া-মহল্লায় ভোটের জন্য তার পক্ষে কাজ করছেন সাধারণ মানুষ ও আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীরা।
সাবেক ছাত্রনেতা জেলা আওয়ামীলীগের সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক মোঃ সফিকুল ইসলাম শফি রাঢ়ী বলেন, ভেদরগঞ্চ পৌরসভা ১৯৯৭ ইং সালে পৌরসভায় রূপান্তরিত করা হয় এবং ১৯৯৯ ইং সালে প্রথম নির্বাচন হয়। সে হিসেবে এ পৌরসভায় যেটুকু উন্নয়ন হয়েছে তার হাত ধরেই হয়েছে, গ শ্রেনী পৌরসভা থেকে খ শ্রেণী পৌরসভায় উন্নয়ন করেছেন তিনি বিগত ১০ বছরে। তার হাত ধরেই উন্নয়নের ছোঁয়া ভেদরগঞ্চ পৌরসভায় লেগেছে। পৌরসভার অসমাপ্ত কাজ গুলো সমাপ্ত করার জন্য দল-মত নির্বিশেষে প্রত্যাশা করছেন। জনমতেও এগিয়ে রয়েছেন হাজী আব্দুল মান্নান মেয়র। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী হওয়ায় মেয়র পদে হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদারের বিজয় সুনিশ্চিত।’ এ বছর পৌরসভার উন্নয়নের জন্য আমরা আওয়ামীলীগের মনোনীত প্রার্থী হাজী আব্দুল মান্নান হাওলাদারকে দলমতের ঊর্ধ্বে মেয়র হিসেবে চাই। কারণ তার মধ্যে মানুষের সেবা, এলাকার উন্নয়ন করার মনোভাব রয়েছে।’
মেয়র প্রার্থী আব্দুল মান্নান হাওলাদার বলেন, ‘বর্তমান সরকার যেভাবে দেশকে উন্নয়নের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, সে ক্ষেত্রে বিগত সময়ে পৌরসভা হিসেবে আমাদের এলাকার পৌরসভায় অনেক উন্নয়ন মূলক কাজ করেছি, গ শ্রেণী থেকে খ শ্রেণীতে উন্নতি করছি, সব দিক থেকে বিবেচনা করে দল আমাকে আবার পুনরায় আওয়ামীলীগের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছে । আমি যদি জনগণের ভোটে আবার নির্বাচিত হতে পারি, ভেদরগঞ্চ পৌরসভার যেসব সমস্যা রয়েছে সেগুলো সমাধান করবো খ শ্রেণী থেকে ক শ্রেণীতে উন্নতি করে একটি আধুনিক পৌরসভা উপহার দেব। সমাজ থেকে অন্যায়, অবিচার, মাদক ও সন্ত্রাস নির্মূল করব।’