বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১, ৯ বৈশাখ, ১৪২৮, ৯ রমজান, ১৪৪২
বৃহস্পতিবার, ২২ এপ্রিল, ২০২১

শরীয়তপুরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক জমি দখল ও ঘর নির্মাণের অভিযোগ

শরীয়তপুরে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে জোরপূর্বক জমি দখল ও ঘর নির্মাণের অভিযোগ

শরীয়তপুর: শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার বিকেনগর ইউনিয়নে আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য ও ১৪৪/১৪৫ ধারা ভঙ্গ করে জোরপূর্বক
সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের (মজিবর মাদবর) জমি দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে স্থানীয় প্রভাবশালী সাবেক মেম্বার আব্দুল আলী মাদবর, তার ছেলে টিটু মাদবরগংরা। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

উপজেলার বিকেনগর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান বাজারে এ ঘটনা সূত্রপাত। এ ঘটনায় শরীয়তপুর আদালতে মামলা চলমান।

এলাকাবাসী জানান, ৯৮নং বড় কৃষ্ণনগর মৌজার এসএ ৬১৬নং খতিয়ানে ৫২১৯, ৫২২২, ৫২৯৫ ও ৫২৯৬ নং দাগে পৈত্রিক ২ দশমিক ৭৮ শতাংশ ও ক্রয়কৃত ৫ দশমিক ৫৬ শতাংশ জমি সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের। ওই জমি দীর্ঘদিন ধরে তিনি ভোগদখল করে আসছেন। এছাড়াও ওই দাগগুলোতে বাজার বসানো (ব্যবসার) জন্য জমিগুলোতে নিজ খরচে বালু দিয়ে ভরাট করেন সাবেক চেয়ারম্যান। বালু ভরাট করতে সাবেক চেয়ারম্যানের ১৮ লাখ টাকা খরচ হয়। সেই সুবাদে সাবেক মেম্বার আব্দুল আলী মাদবর, তার ছেলে টিটু মাদবরগংরা সাবেক চেয়ারম্যানকে সাড়ে ১৬ শতাংশ জমি দেন। সেই সাড়ে ১৬ শতাংশ জমিও দখল করার পায়তারা করছে সাবেক মেম্বার আব্দুল আলী মাদবর, টিটু মাদবর, ইলিয়াস মাদবর, ইমন মাদবর ও শাহাজুল চৌকিদাররা।

তাই সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান আদালতের স্মরণাপন্ন হয়ে ওই জমির ওপর ১৪৪/১৪৫ ধারা জারি করে। তবুও প্রভাবশালী আব্দুল আলীগং জমি দখল করে ঘর নির্মাণ করতে থাকে। বিষয়টি জাজিরা থানা পুলিশকে অবগত করা হলে তারা আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক ও শান্তি বজায় রাখতে আব্দুল আলীগংকে ঘর নির্মাণ বন্ধের নির্দেশ দেন। পুলিশ ঘর বন্ধ করতে বললেও তারা চালিয়ে যাচ্ছে কাজ। এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও হামলার ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন। তাই বিষয়টি নিরসনে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন সাবেক চেয়ারম্যান ও এলাকাবাসী।

বৃহস্পতিবার (১৮ মার্চ) সকালে সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় সাবেক মেম্বার আব্দুল আলী মাদবরগংরা ঘরের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে।

বিকেনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,
জমি দখল করে ঘর তুলছে প্রভাবশালী সাবেক মেম্বার আব্দুল আলী, টিটু, ইলিয়াস, ইমন ও শাহাজুলগংরা। ওরা পুলিশ ও এলাকাবাসীর কথা শুনছেন না। ওরা সন্ত্রাসী কার্যকলাপ করছে। ইলিয়াস, আব্দুল আলী মাদবরগংরা একাধিক হত্যা ও চাঁদাবাজি মামলার চার্জশিটভূক্ত আসামী।

এদিকে সাবেক মেম্বার আব্দুল আলী মাদবর বলেন, আমাদের পৈত্রিক ও ক্রয়কৃত জমি এগুলো। তাই দোকান ঘর তুলছি। আর জমি ভরাট করা বাবদ এক লাখ টাকা আমি সাবেক চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমানকে দিয়েছিলাম। তবুও আমাদের হয়রানি করছে সাবেক চেয়ারম্যান।

এ বিষয়ে জাজিরা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার জানান, ওই জমিতে আদালতের ১৪৪/১৪৫ ধারা জারী করা আছে। ঘর নির্মাণকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলার অবনতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকায় সেখানে পুলিশ পাঠিয়ে নোটিশের মাধ্যমে ঘর নির্মাণ কাজ বন্ধ করা হয়েছিল। তবুও তারা যদি আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ঘর নির্মাণের কাজ করে। তাহলে আমরা দ্রুত ব্যবস্থা নিব।


error: Content is protected !!