শনিবার, ১৫ মে, ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮, ২ শাওয়াল, ১৪৪২
শনিবার, ১৫ মে, ২০২১

অবশেষে ফাঁকা হলো ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ী

অবশেষে ফাঁকা হলো ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ী

গোপালগঞ্জ : স্থাগিতাদেশ অমান্য ও স্বাস্থ্যবিধি না মেনে পূণ্যস্নানে অংশ নেয়া পূণ্যার্থীদের ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ী থেকে সরিয়ে দিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন।

আজ শুক্রবার (০৯ এপ্রিল) বিকাল চারটার দিকে অভিযান চালিয়ে ঠাকুর বাড়ী থেকে পূণার্থীদের সড়ানো হয়।

কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা (ইউএনও) রথীন্দ্র নাথ রায় এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

ইউএনও রথীন্দ্র নাথ রায় বলেন, দ্বিতীয় পয্যায়ে করোনা ভাইরাস সংক্রমণরোধে বারুনী স্নাণ ও মেলা স্থগিত করে স্থানীয় প্রশাসন ও ঠাকুর বাড়ী। কিন্তু করোনা মহামারী ও স্থাহিতাদেশ উপেক্ষা করে সূর্য ওঠার সাথে সাথে ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ীতে হাজির হন লক্ষাধিক মতুয়া ভক্ত। এসময় তারা কামনা ও বাসনা সাগরে (বড় ধরনের পুকুর) স্নাণ করে বিগত দিনের পাপ মোচন, পূর্ণলাভ ও আগামী দিনের সুখ-সমৃদ্ধি কামনা করেন।

পূর্ণস্নাণে অংষ নেয়া ভক্তরা মাস্ক পরিধান ও স্বাস্থ্যবিধিসহ সরকারী নির্দিশনা না মানায় তাদের ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ী ছেড়ে যাবার নির্দেশ দেয়া হয়। এসময় ভক্তরা নির্দেশনা মেনে ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ী ছেড়ে যান।

শ্রীশ্রী হরিচাঁদ ঠাকুর ইংরেজী ১৮১১ খ্রিষ্টাব্দ ১১ই মার্চ কাশিয়ানী উপজেলা সাফলীডাঙ্গা গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার অলৌকিত্বতের জন্য লীলা তীর্থভূমিতে পরিনত হয় ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ী। এরপর থেকেই শ্রীশ্রী হরিচাঁদ ঠাকুরের জন্মতিথিতে দুই’শ বছরেরও বেশি সময় ধরে ওড়াকান্দির ঠাকুর বাড়ীতে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সর্ববৃহত বারুনী স্নাণ ও মেলা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

ঠাকুর বাড়ীর সদস্য ও কাশিয়ানী উপজেলা চেয়ারম্যান সুব্রত ঠাকুর বলেন, এবছর বারুণী স্নানোৎসব ও মেলা অনুষ্ঠিত হবে না, সে কারনে ভক্তদের ঠাকুর বাড়িতে আসতে নিষেধ করা হয়েছিল। কিন্তু, তাদের শত অনুরোধ উপক্ষো করে লক্ষাধিক মতুয়া ভক্ত ওড়াকান্দিতে ঠাকুর বাড়িতে স্নান উৎসবে মেতে ওঠে। পরে স্থানীয় প্রশাসন ভক্তদের ওড়াকান্দির ছেড়ে যারা নির্দেশ দিলে তারা ছেড়ে যান।


error: Content is protected !!