শনিবার, ১৫ মে, ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮, ২ শাওয়াল, ১৪৪২
শনিবার, ১৫ মে, ২০২১

শরীয়তপুরে কঠোরভাবে পালিত হচ্ছে প্রথম দিনের লকডাউন

শরীয়তপুরে কঠোরভাবে পালিত হচ্ছে প্রথম দিনের লকডাউন

শরীয়তপুর : শরীয়তপুরে করোনা প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত সর্বাত্মক কঠোরভাবে পালিত হচ্ছে প্রথম দিনের লকডাউন। জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশের চেকপোস্টে কঠোর নজরদারি।
অন্য যেকোনো দিনের তুলনায় শহরে লোকসমাগম অনেকটা কম। জরুরি প্রয়োজনে কিছু মানুষ ঘর থেকে বের হলেও গণপরিবহন, মার্কেট ও বিপনি বিতান বন্ধ রয়েছে।
পুলিশের পাশাপাশি র‌্যাবসহ জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের নেতৃত্বে মোবাইল টিম মাঠে কাজ করছে।
বুধবার (১৪ এপ্রিল) সকালে লকডাউনের শুরু থেকে শরীয়তপুরে জেলার বিভিন্ন এলাকা ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।
সকাল থেকেই জেলায় কঠোর লকডাউন বাস্তবায়নে আইনশৃংখলা বাহিনী মাঠে তৎপরভাবে কাজ করছে। শরীয়তপুর শহরসহ মহাসড়কের বিভিন্ন পয়েন্টে চেকপোস্ট বসিয়ে যানবাহন চলাচলে লকডাউনের নির্দেশ বাস্তবায়ন করতে দেখা গেছে। অকারণে কেউ যানবাহন নিয়ে বের হলে তাদের বুঝিয়ে ফিরিয়ে দিচ্ছেন পুলিশ। কেউ লকডাউনের নির্দেশ অমান্য করলে বাধ্য হয়ে পুলিশ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। এদিকে, শরীয়তপুরে সরকারি বেসরকারি অফিস মার্কেট বিপণী বিতান, খাদ্য ও ওষুধের দোকান ছাড়া সকল ধরনের ব্যাবসা প্রতিষ্ঠান দোকান পাট বন্ধ রয়েছে। শরীয়তপুর থেকে ঢাকাসহ সারা দেশে চলাচল করা গণপরিবহন বন্ধ রয়েছে।

শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান জানান, সম্প্রতি করোনার প্রাদুর্ভাব হঠাৎ করে বেড়ে গেছে। সরকার তা প্রতিরোধে যথাযথ প্রয়োজনয়ি পদক্ষেপের অংশ হিসেবে এ লকডাউন ঘোষণা করেছে। শরীয়তপুর জেলায়  ৬টি উপজেলায় ৭টি মোবাইল কোর্ট পরিচালনা সহ জনসাধারণের সচেতনামূলক মাইকিং করা হচ্ছে । পাশাপাশি অপ্রয়োজনে ঘরের বাহির হতে নিষেধ করা হয়েছে। তিনি সকলকে অন্ততঃপক্ষে নিজেদের সুরক্ষার স্বার্থে লকডাউন মেনে চলার আহবান জানান।

শরীয়তপুরের পুলিশ সুপার এস এম আশরাফুজ্জামান জানান, দেশকে করেনার হাত থেকে রক্ষার স্বার্থে সরকারের নির্দেশে সারাদেশে লকডাউন চলছে। সরকার ঘোষিত লকডাউন বাস্তবায়ন করতে পুলিশ বাহিনী সদা সচেষ্ট রয়েছে। কঠোরভাবে লকডাউন বাস্তবায়ন করতে শরীয়তপুর জেলা প্রশাসন, পুলিশ র‌্যাবের সমন্বয়ে গঠিত আইনশৃংখলাবাহিনী মাঠে তৎপর রয়েছে। জেলার বিভিন্ন পয়েন্টে পুলিশের চেকপোস্টে তল্লাশি, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে মোবাইল টিম ও র‌্যাব মাঠপর্যায়ে কাজ করছে। করোনা সংক্রমণ রোধে লকডাউনের সকল রকম নির্দেশ ও স্বাস্থ্যবিধি মানতে হবে। সকলে সহযোগিতা করলে লকডাউন বাস্তবায়নসহ করোনা মোকাবেলায় সহজ হবে।

নগরীর বেশীরভাগ দোকানপাঠ বন্ধ। তবে রাস্তার পাশে কাঁচা বাজারে  দোকানগুলোতে বেচাকেনায় কিছু ভির দেখা গেছে। সকালের দিকে রাস্তাঘাটে মানুষ জন তুলনামূলক কম ছিল।

লকডাউনের ভিতরে বের হওয়া সাধারন জনগণ বলছেন, পেটের তাগিদেই তাদের বের হতে হচ্ছে রাস্তায়।


error: Content is protected !!