বুধবার, ২০ অক্টোবর, ২০২১, ৪ কার্তিক, ১৪২৮, ১৩ রবিউল আউয়াল, ১৪৪৩
বুধবার, ২০ অক্টোবর, ২০২১

নিউজ ১৬ বিডিতে লাইভ প্রচার হওয়ার পর প্রসূতি নারীকে নিজের রান্না করা খাবার দিলেন ইউএনও

নিউজ ১৬ বিডিতে লাইভ প্রচার হওয়ার পর প্রসূতি নারীকে নিজের রান্না করা খাবার দিলেন ইউএনও

শরীয়তপুর: সরকারঘোষিত আটদিনের বিধি-নিষেধের প্রথমদিনে শরীয়তপুরে সর্বত্র কঠোরভাবেই ‘লকডাউন’ পালিত হচ্ছে। শহরের মোড়ে মোড়ে টহল দিচ্ছেন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা।

করোনাভাইরাসের কারণে হোটেল বন্ধ। নেই খাবার। স্থানীয় একটি অনলাইন পোটাল নিউজ ১৬ বিডি ফেসবুক পেইজে ‘লকডাউন’ সম্পর্কে লাইভ দেন। সেই লাইভে যুক্ত হন এক শিক্ষক। তিনি লাইভে জানান, তার স্ত্রীকে ১৩ এপ্রিল রাত ১০টার দিকে শরীয়তপুরের শহরের একটি ক্লিনিকে ভর্তি করেন। রাত ১২টার দিকে তার স্ত্রীর সিজারে সন্তান প্রসব করেন। কিন্তু আজ ১৪ এপ্রিল সকাল থেকে ‘লকডাউন’ হওয়ায় শহরের হোটেল, রেস্টুরেন্টে বন্ধ থাকে।

তাই তার স্ত্রী ভাত খেতে চাইলেও সকালে ও দুপুরে শহরের হোটেল, রেস্টুরেন্ট ঘুরেও ভাত কিনে এনে খাওয়াতে পারেননি।

এ বিষটি নজরে আসে শরীয়তপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার । সবকিছু জানার পর নিজ হাতে বাসায় রান্না করা খাবার ওই প্রসূতির জন্য নিয়ে আসেন তিনি।

বুধবার (১৪ এপ্রিল) বিকেলে শরীয়তপুরের শহরের নিপুন ডায়াগনস্টিক সেন্টার এন্ড ক্লিনিকে এই ঘটনা ঘটে। ওই প্রসূতিকে খাবার দিয়ে সহায়তা করে প্রসংশায় ভাসছেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনদীপ ঘরাই।

ওই প্রসূতি নারী (২৮) বরগুনা সদর উপজেলার রায়ভগ গ্রামের মো. ইউনুস শাহীনের স্ত্রী। ইউনুস শাহীন শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলার বিলাশপুর ইউনিয়নে অবস্থিত বিলাশপুর কুদ্দুস ব্যাপারী উচ্চ বিদ্যালয়ের ইংরেজি শিক্ষক। সেই সুবাদে ২০১৮ সাল থেকে স্ত্রী নিয়ে জাজিরা বিলাশপুর এলাকায় থাকেন ইউনুস।

ইউএনও মনদীপ ঘরাই বলেন, লগডাউন চলছে। এ সময় হোটেল, রেস্টুরেন্টসহ সবকিছুই বন্ধ রয়েছে। লাইভে দেখলাম প্রসূতি মা সারাদিন ভাত
খাননি। তাই নিজ থেকেই খাবার নিয়ে ক্লিনিকে চলে এলাম। লকডাউনের কারণে আজ আমি বাসায় নিজেই রান্না করেছি।

ইউএনও আরও জানান, করোনা পরিস্থিতি মোকাবেলা করতে গিয়ে সবচেয়ে বেশি সংকটের মুখে পড়েছেন খেটে খাওয়া ও অসহায় মানুষগুলো। সরকার সবসময় খাদ্য সহযোগিতা দিয়ে থাকেন। সরকারের পাশাপাশি বিত্তবানদেরও এগিয়ে আসা প্রয়োজন।


error: Content is protected !!