শনিবার, ১৫ মে, ২০২১, ১ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮, ২ শাওয়াল, ১৪৪২
শনিবার, ১৫ মে, ২০২১

শরীয়তপুরে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক যুবককে কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা, একজনকে গ্রেফতার

ছবি: আহত ইমাম হোসেন

শরীয়তপুর: শরীয়তপুর নড়িয়া উপজেলায় পূর্ব শত্রুতার জের  ধরে  ইমাম হোসেন মাদবর (২১) নামে এক যুবককে ধারালো চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে হত্যার চেষ্টা করেছে সন্ত্রাসীরা।
এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার বিকালে আহতের মা আখি আক্তার বাদী হয়ে সন্ত্রাসী রাজন মাদবর, আবু বক্কর, হালিমা বেগমসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে আসামি করে নড়িয়া থানায় একটি অভিযোগ করেছেন। এঘটনায় একজনকে ঘটনাস্থল থেকে আটক করে বিকালে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার রাজনগর ইউনিয়নের সাতঘরিয়া কান্দির খলিল মাদবরের পরিবারের সাথে আঃ রাজ্জাক মাদবরের পরিবারের দীর্ঘ দিনের পূর্ব শত্রুতা রয়েছে, এই পূর্ব শত্রুতার জের ধরে পরিকল্পিতভাবে বুধবার রাতে ইমামকে ধরে নিয়ে ধারালো চাপাতি দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ইমাম হোসেনকে আহত করে।
পরে এলাকাবাসী আহত ইমাম হোসেনকে উদ্ধার করে প্রথমে জাজিরা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। পরে তার  অবস্থার  অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে শরীয়তপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে, তার অবস্থা গুরুত্বর হওয়ায় সদর হাসপাতালের কর্বব্যরত চিকিৎসক তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।
এদিকে এলাকাবাসী জানান, রাজন মাদবররা তাদের কথার বাহিরে কেউ গেলে এলাকার মানুষের ওপর প্রতিনিয়তই অত্যচার চালিয়ে যাচ্ছে।

আহত ইমাম হোসেনের মা আখি বেগম জানান, রাজন মাদবর পরিবারের সাথে আমাদের পূর্ব শত্রুতা রয়েছে, এর জের ধরে হালিমা বেগমের নির্দেশে রাজন মাদবর ও আবুবক্কর তার ছেলেকে ডেকে নিয়ে হত্যার উদ্দেশ্য এলোপাথালি কোপাতে থাকে, তার চিৎকার শুনে আমরা ঘটনাস্থলে গেলে তাকে ফেলে শন্ত্রাসীরা চলে যায়। তার সাথে থাকা একটি স্বর্ণের চেন ও দুটি আংটি নিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে নড়িয়া থানার  নবাগত ওসি অবনী শংকর কর জানান, এ ঘটনায় আহতর মা আখি আক্তার চার জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে, রাজন মাদবর একজনকে ঘটনাস্থল থেকেই আটক করা হয়েছে, আজ থেকে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে, বাকীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।


error: Content is protected !!